ভাওয়াল রিসোর্ট । ঘুরে আসুন গভীর অরন্যের ছায়াঘেরা গাজীপুরের ভাওয়াল রিসোর্ট থেকে
Bhawal Resort

ভাওয়াল রিসোর্ট । ঘুরে আসুন গভীর অরন্যের ছায়াঘেরা গাজীপুরের ভাওয়াল রিসোর্ট থেকে

ঢাকার অদূরে গাজীপুর জেলার মির্জাপুর ইউনিয়নের নলজানি গ্রামে সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক পরিবেশের সমন্বয়ে ও সবুজ গাছপালা দিয়ে ছায়াঘেরা  প্রায় ৬৫ একর জমির উপর অবস্থিত ভাওয়াল রিসোর্ট (Bhawal Resort)। রিসোর্টটি নির্মিত হয় ২০১৮ সালের ৬ই এপ্রিল।

দর্শনার্থীদের বিনোদন কেন্দ্রিক এই রিসোর্টটিতে আছে মোট ৫টি জোন এবং ৬১টি কটেজ যেখানে শহুরের কর্মব্যস্তময় দর্শনার্থীরা দিগ-দিগন্ত থেকে ছুটে আসে একটু প্রশান্তি প্রাপ্তির আশায়।

কটেজগুলোতে রাতের আকাশ অন্ধকারাছন্ন হলেই চারিদিকে ঝিঁঝিঁ পোকার ডাকে মোহাচ্ছন্ন এক গ্রাম্য পরিবেশের সৃষ্টি হয়। চাইলে আপনিও কটেজের বারান্দায় বসে কান পেতে শুনতে শুনতে চলে যেতে পারেন ঝিঁঝিঁর রাজ্যে।

বছরের বিভিন্ন সময়ে রিসোর্টের কটেজ ও অনুষ্ঠানের উপর বিশেষ ছাড় দেওয়া হয়। চোখ যতদূর যাবে দেখা যাবে শুধু উঁচু-উঁচু সবুজ গাছপালায় ঘেরা সম্পূর্ণ রিসোর্ট। আছে বিশাল সুইমিংপুল। যেখানে চাইলে পানিতে হামাগুড়ি দিয়ে আসতে পারেন আপনি নিজেও।

রয়েছে সাজেকের আকর্ষণীয় ও জনপ্রিয় সেই হ্যালিপ্যাড যেখানে দাঁড়িয়ে উপভোগ করতে পারেন আপনি পুরো সূর্যাদয় ও সূর্যাস্ত। সম্প্রতি এখানে চালু করা হয় নতুন স্পা কেন্দ্র।

কটেজ সমূহ

ভাওয়াল রিসোর্ট এন্ড স্পাতে আছে মোট তিন ধরনের কটেজ রুম।

ওয়ান বেডরুম ভিলা : ২ জন ব্যক্তির জন্য একটি বেডরুম যুক্ত কটেজের দৈনন্দিন ভাড়া প্রায় ১২,০০০ টাকা মাত্র। পাচ্ছেন কুইন সাইজের বেড ও কেবিনেট।

ওয়ান বেডরুম স্যুইট : ২ জন ব্যক্তির জন্য একটি বেডরুম স্যুইট এর ভাড়া প্রায়  ১৬,০০০ টাকা। থাকছে কুইন সাইজের বেড ও কেবিনেট।

টু বেডরুম স্যুইট : ৪ জন ব্যক্তির জন্য দুইটি বেডরুম যুক্ত স্যুইট এর ভাড়া প্রতিদিন প্রায় ২৪,০০০ টাকা। সাথে থাকছে আরও কিং সাইজের ২টি বেড, লিভিং রুম, বাথটাব।

রিসোর্ট পুলের পাশ ঘেঁষে গড়ে উঠেছে আরও কিছু কটেজ ও ভিলা। চলুন তাহলে সেসব কটেজ সম্পর্কে এক পলকে জেনে আসা যাকঃ  

ওয়ান বেডরুম ভিলা পুল ভিউ : পুলের কাছে প্রকৃতির মাঝে এ কটেজটি একটি বেডরুম দ্বারা গঠিত। পুলের পাশে হওয়ায় রিসোর্টের বারান্দা দিয়ে দাঁড়ালেই পুলের ও পুরো রিসোর্টের সম্পূর্ণ সৌন্দর্য উপভোগ করা যায়। তাই বেশিরভাগ দর্শনার্থীরা পুল ভিউ ভিলাকেই তাদের পছন্দের তালিকায় বেঁছে নেয়।

ওয়ান বেডরুম স্যুইট পুল ভিউ : পুলের গাঁ ঘেঁষে নির্মিত ওয়ান বেডরুম স্যুইটটি। বেডরুমের বারান্দা দিয়ে এক পলকেই রিসোর্টের সব সৌন্দর্য দেখা যায়। রিসোর্টগুলো এতোটাই জনপ্রিয় হয়ে উঠছে যে এখন দর্শনার্থীরা যাওয়ার আগে বুকিং দিয়ে না গেলে কটেজ খালি পাওয়া দুষ্কর।

টু বেডরুম ভিলা পুল ভিউ : পুলের পাশে দুইটি বেডরুম যুক্ত এই ভিলাটিতে পরিবারের চার জন থাকতে পারবে। এর বেশি লোক সংখ্যা হলে অতিরিক্ত ফি প্রদান করতে হয়।

প্রতিটি কটেজ রুমে থাকছে ২৪ ঘণ্টা রুম সার্ভিস ও বৈদ্যুতিক সুব্যবস্থা, ৫০” এলসিডি টিভি, এসি রুম, পরিবেশ বান্ধব অতিথি সুবিধা, প্রতিটি রুমের সাথে বারান্দা, চা ও কফি তৈরির সুবিধা, ফ্রি ওয়াইফাই ইন্টারনেট এর সুব্যবস্থা। আরও থাকছে অতিথিদের জন্য মানসম্মত সকালের নাস্তা এবং সাফারি পার্ক ভ্রমণ।

স্পেশাল অফার

ভাওয়াল রিসোর্ট দর্শনার্থীদের বিভিন্ন মৌসুমে মোট চার ধরনের অফার দিয়ে থাকে।

  • রুম অফার
  • ডাইনিং অফার
  • মিটিং অফার
  • উইডিং অফার

রেস্টুরেন্ট

ভাওয়াল রিসোর্ট এন্ড স্পাতে আছে দর্শনার্থীদের জন্য সুস্বাদু ও মজাদার খাবার রেস্টুরেন্ট। রেস্টুরেন্টটি সপ্তাহে সাত দিন খোলা থাকে। এখানে আছে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন ডাইনিং ব্যবস্থা। চোখ জুড়ানো রঙ, তাজা ফুল, সঙ্গীত ও মোমবাতি দিয়ে পুরো রেস্টুরেন্ট সজ্জিতকরন হয়েছে। বিভিন্ন অনুষ্ঠানগুলোতে এখানে জনপ্রিয় শিল্পীদের ভাড়া করে এনে করা হয় কনসার্টের ব্যবস্থা। আর গ্রীষ্মের দিনে চাইলে আপনি রেস্টুরেন্টের বাহিরে লাইটার, বহিরাগত পানীয় ও অ্যালকোহলিক অফারগুলো ভাড়া নিয়ে বাগানে চেয়ার সেটিং করে উষ্ণ বায়ুমণ্ডলে বসে উপভোগ করতে পারেন পুরো পৃথিবীকে।

বন্ধের দিন

সকলের বিনোদনের আকর্ষণ এই ভাওয়াল রিসোর্ট এন্ড স্পাতে সাপ্তাহিক ছুটির দিন বৃহস্পতিবার, শুক্রবার ও শনিবার।

চেক ইন ও চেক আউট

ভাওয়াল রিসোর্টে চেক ইন টাইম দুপুর ২ টায় এবং চেক আউট টাইম বেলা ১২ টায়। ২ টার আগে অতিথিরা রিসোর্টে উপস্থিত হলে তারা চাইলে আগের রাতের রুম বুক করতে পারে।

চেক ইনের সময় সাথে যা যা লাগবে

অবশ্যই চেক ইনের সময় আপনাকে সাথে করে জাতীয় আইডি কার্ড, পাসপোর্ট, ড্রাইভিং লাইসেন্স, নিজ কোম্পানির ছবি সহ আইডি কার্ড নিয়ে আসতে হবে। আর রিসোর্টে প্রবেশের সাথে সাথে তো ওয়েলকাম ড্রিকংস থাকছেই।

সেবা-নিরাপত্তা ও পার্কিং

ভাওয়াল রিসোর্ট এন্ড স্পার সকল কর্মচারী-কর্মকর্তাগন সর্বদা অতিথি সেবায় নিয়োজিত থাকে। আপনার নিরাপত্তার জন্য রয়েছে মোট ৪৫জন আনসার ও সার্বিক দেখাশুনার দায়িত্বে আছে ১৫০ জন কর্মচারী-কর্মকর্তা। সেখানে প্রতিটি কটেজে আপনাকে সবসময় আপনার সার্বক্ষণিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করবে। এছাড়া আছে রিসোর্টে গাড়ি পার্কিংয়ের সুব্যবস্থা। যার ফলে দর্শনার্থীরা অনায়াসেই তাদের ব্যাক্তিগত গাড়ি নিয়ে যেতে পারে।

সুইমিংপুল

এখানে আছে বড়দের জন্য আকর্ষণীয় বিশাল আকার সুইমিংপুল। বড়দের সাথে সাথে আছে ছোটদের জন্য কম উচ্চতা সম্পন্ন পুল।

রিসোর্ট এক্টিভিটিস

চাইলেই আপনি এখানে খোলা মাঠে সাইকেল চালানো, লন টেনিস, ব্যাডমিন্টন, বিলিয়ার্ড, স্পা ও বারবিকিউ পার্টি করতে পারেন।

ইভেন্টস

বিয়ে, কনফারেন্স, সেমিনার, মিটিং থেকে শুরু করে বিভিন্ন ইভেন্ট-সভা করার জন্য ভাওয়াল রিসোর্টে আছে মনোরম ও খোলা জায়গা। 

ফিটনেস সেন্টার

ভাওয়াল রিসোর্টে আছে ছেলে ও মেয়েদের জন্য সুন্দর আকর্ষণীয় জিমাগার ও ফিটনেস সেন্টার। যেখানে আগত অতিথিরা এসে তাদের শরীর চর্চা করে। 

সুযোগসুবিধা

  • সার্বক্ষণিক ওয়াইফাই ইন্টারনেটর সুব্যবস্থা
  • অতিথিদের জন্য মানসম্মত সকালের নাস্তা
  • চা ও কফির ব্যবস্থা
  • ২৪ ঘণ্টার বৈদ্যুতিক নিরাপত্তা
  • প্রতিটি কটেজে ফ্রুট বাস্কেট
  • দর্শনার্থীদের জন্য বিশালাকার সুইমিংপুল
  • প্রতিটি কটেজ রমে এলসিডি টিভি সংযোগ
  • প্রতিটি কটেজ রুমে ৫০০ মিলিলিটারের বিশুদ্ধ পানি
  • শিশুদের খেলার উপকরণাদি চার্জ সম্পূর্ণ বিনামূল্যে
  • শিশুদের গেম রুম চার্জযোগ্য। সেখানে ১২ বছরের কম বয়সীদের শিশু হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

ঠিকানা

গ্রাম-নলজানি, ইউনিয়ন-মির্জাপুর, পোস্ট-সদর
গাজীপুর। ঢাকা।

যোগাযোগ

রিসোর্ট সম্পর্কে আরও বিস্তারিত জানতে ও আগে থেকে বুকিং দিতে সরাসরি যোগাযোগ করুনঃ

মোবাইলঃ +880-1871004007    

  +880-1871004009
  +880-1871004008
  +880-1871004005    

Website: www.bhawalresort.com
Email: info@bhawalresort.com

যাওয়ার উপায়

খুব সহজে পরিবারের সকলকে নিয়ে সপ্তাহের ছুটির দিনে আপনিও যেতে পারেন ভাওয়াল রিসোর্ট এন্ড স্পাতে। যেহেতু রিসোর্টটি ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে মাত্র ৪৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত তাই ঢাকা থেকে যাওয়াই শ্রেয়।

ঢাকা থেকে ভাওয়াল রিসোর্ট

ঢাকা থেকে গাজীপুরগামী বিভিন্ন বাসে করে অথবা আপনার নিজস্ব গাড়িতে করে ঢাকা- ময়মনসিংহ হাইওয়ে হয়ে প্রথম গাজীপুর চৌরাস্তা যেতে হবে। সেখান থেকে রাজেন্দ্রপুর চৌরাস্তা যাবেন। রাজেন্দ্রপুর চৌরাস্তা হয়ে মেম্বারবাড়ি বাস স্টপ থেকে ডানে মোড় নিয়ে আরও তিন কিলোমিটার এগুলেই পৌঁছে যাবেন ভাওয়াল রিসোর্ট এন্ড স্পা। অতিরিক্ত ট্রাফিক না থাকলে ঢাকা থেকে যেতে সময় লাগবে মাত্র ১ঘন্টা ৩০মিনিট থেকে ২ ঘণ্টা।

গাজীপুরের আরো জনপ্রিয় রিসোর্ট সম্পর্কে জানতে, ভিজিট করুন: 

আমাদের এই পোস্টটি যদি আপনার ভ্রমনের ক্ষেত্রে কিছুটা হলেও উপকারে আসে এবং ভালো লেগে থাকে তাহলে পোস্টটি লাইক দিতে ভুলবেন না। এবং পোস্টটি শেয়ার করে আপনার আশেপাশের সবাইকে জানার সুযোগ করে দিন।


বি.দ্র. একটি সুন্দর প্রকৃতি ও পরিবেশ আমাদের দেয় একটি প্রাণবন্ত জীবন। আর এই সুন্দর পরিবেশটিকে সংরক্ষণ করার দায়িত্বটাও একান্ত আমাদের। তাই দয়া করে সেখানে কেউ মাটিতে কিছু ফেলবেন না,গাছপালা ছিঁড়বেন না এবং পরিবেশ নোংরা করবেন না। সর্বোপরি আমাদের এই সুন্দর পরিবেশকে আরও সুন্দর রাখার চেষ্টা করবেন।  

ভ্রমণ সম্পর্কিত নতুন নতুন জায়গার আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে একটিভ থাকুন। 

আপনার পছন্দের জায়গাগুলো যেখানে আপনি এখনও ভ্রমন করেন নি তবে সেখানে যেতে চান! এরকম নিজের সব পছন্দের স্থানগুলোর নাম লিখে ও কিভাবে যেতে হবে তার সকল তথ্যসমূহ জানতে হলে আমাদের ফেসবুক গ্রুপে হেল্প পোস্ট করুন। আমরা আপনার পছন্দের স্থানগুলোর সকল তথ্য দিতে সচেষ্ট থাকবো সর্বক্ষণ।

আর হ্যা, অবশ্যই আপনার বিশ্ব ভ্রমন অভিজ্ঞতাটি আমাদের ফেসবুক গ্ৰুপে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

Leave a Reply