Dream Holiday Park | ড্রিম হলিডে পার্ক ভ্রমণ গাইড
dream holiday park

Dream Holiday Park | ড্রিম হলিডে পার্ক ভ্রমণ গাইড

 

প্রাকৃতিক সৌন্দর্যপূর্ণ গাছপালা বেষ্টিত মনোরম পরিবেশ ও বৈচিত্র্যময় রাইডসের সমন্বয়ে গড়ে উঠেছে ড্রিম হলিডে পার্ক (Dream Holiday Park)। জনপ্রিয় এই পার্কটি ঢাকার অদূরে নরসিংদী জেলার সদর উপজেলায় পাঁচদোনার চৈতাবাত এলাকায় ৬০ একর জমির উপর নির্মিত।

বর্তমানে বাংলাদেশের একমাত্র থিম পার্ক হিসেবে পরিচিত ড্রিম হলিডে পার্কটি। অবসর সময়ে মনের ক্লান্তি দূর করতে শহরের বাস্তবিক জীবন ছেড়ে কাল্পনিক জগতে ভেসে বেড়াতে মানুষ ছুটে যাচ্ছে “ড্রিম হলিডে পার্কে”। যেখানে আপনি পাবেন ছোট-বড় একাধারে সকলের জন্য বিনোদন ব্যবস্থা ও বিভিন্ন রাইডসে চড়ার সুযোগ।

এখানে আছে ছোট-বড়দের জন্য মোট ৩০ ধরনের রাইডস। এছাড়াও আছে মধুরিমা ও মায়াবী নামের দুইটি পিকনিক স্পট। যেখানে আপনি পরিবারের সকলকে নিয়ে পিকনিকের আনন্দ আয়োজনে মেতে উঠতে পারেন। করতে পারেন বারবিকিউ পার্টি। আর এই পিকনিক স্পট এর পাশেই আছে বাংলো। তার পাশেই আছে দোতলা বাংলোর ব্যবস্থা।

সারাদিন পুরো পার্ক ঘুরে যখন আপনি তৃষ্ণায় ক্লান্ত! ঠিক তখনই শীতল পানিতে গা ভিজিয়ে আসতে চাইলে আছে সুইমিংপুল। যেখানে বন্ধুরা মিলে পানিতে সাঁতার কাটতে পারেন অনায়াসে। দর্শনার্থীদের রাত্রি যাপনের জন্য এখানে আছে দিবা ও রাত্রি নামে দুইটি কটেজ।

প্রবেশ মূল্য ও রাইডস মূল্য

ড্রিম হলিডে পার্কে প্রবেশের জন্য টিকেট মূল্য ছোটদের জনপ্রতি ২০০ এবং বড়দের জনপ্রতি ৩০০ টাকা । আর এ টিকেট দ্বারাই আপনি পাচ্ছেন ড্রিম হলিডে পার্ক ও ড্রিম সাফারি পার্কে প্রবেশ অগ্রাধিকার।

এছাড়া ড্রিম হলিডে পার্কে ওয়াটার ওয়ার্ল্ডে প্রবেশের জন্য টিকেট মূল্য জনপ্রতি ৩০০ টাকা এবং বিভিন্ন রাইডস এ চড়তে হলে টিকেট মূল্য ৫০ থেকে ৪০০ টাকার মধ্যে সীমাবদ্ধ।

বি.দ্রঃ মুক্তিযোদ্ধা, পাবলিক পরীক্ষায় গোল্ডেন জিপিএ ৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থী, ইয়াতিম ও প্রতিবন্ধীদের জন্য প্রবেশ একদম ফ্রি। এছাড়া স্কুল, কলেজের পিকনিক ও হতদরিদ্র মানুষের জন্য আছে বিশেষ ছাড়!

পার্কের পরিবেশ

ড্রিম হলিডে পার্কটির প্রধান ফটক দিয়ে ঢুকলেই সবার নজর কাড়ে তার কারুকার বিশিষ্ট বাহারি টাইলসগুলো। যার উপর দিয়ে হেঁটে বেড়ায় দর্শনার্থীরা। নিরিবিলি প্রাকৃতিক পরিবেশের সান্নিধ্যে আপনি মিশে যাবেন এক স্বপ্নময়য় ভুবনে।

পার্কে ঢুকলেই সকলের চোখে ধরা দেয় কৃত্রিম উপায়ে তৈরি অস্ট্রেলিয়ার বিখ্যাত ইমু পাখি, নাগেট ক্যাসেল, ডুপ্লেক্স  কটেজ পার্কে শিশু- কিশোরদের জন্য বিভিন্ন রাইডস। সুবিশাল স্বচ্ছ পানিদ্বারা তৈরি লেক, হংস রাজ প্যাডেল, জেট ফাইটার বোট, ক্যানেল, রকিং হর্সসহ আরও অনেক কিছু।

প্রায় ৩০ প্রকার রাইডসের মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় হচ্ছে এয়ার বাই সাইকেল। যার মধ্যে বসে দুজন মানুষ অনায়াসে প্যাডেল চালিয়ে পার্কের উপর দিয়ে চড়ে বেড়াতে পারে। পিকনিকের আয়োজনের জন্য আছে মায়াবী ও মধুরিমা নামে দুইটি পিকনিক স্পট। আর এই মায়াবী স্পটে কৃত্রিম জলজ প্রাণীর পিঠে চড়ে আপনি পৌঁছে যাবেন রূপকথার মৎস্য কন্যার মায়াবী দানবের দেশে।

আছে রাত্রি যাপনের জন্য দিবা ও রাত্রি নামে দুইটি কটেজ। এখানে আছে ওয়াটার ওয়াল্ড। চাইলেই পরিবারের সদস্য নিয়ে নেমে যেতে পারেন এই জলের রাজ্যে। চারিদিকের এতো সব বিনোদনের ব্যবস্থা থাকায় আপনার আনন্দসীমার কমতি থাকবে না এই ড্রিম হলিডে পার্কে।

ড্রিম হলিডে পার্কের ইতিহাস ও প্রতিষ্ঠা  

মূলত শিল্প কারখানা প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে ঢাকার অদূরে নরসিংদী জেলার সদর উপজেলায় পাঁচদোনায় জমি কিনেছিলেন ফনিক্স গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রবীর কুমার সাহা। তবে সে এলাকায় গ্যাস সংযোগ না থাকার কারনে পরবর্তীতে সেখানে শিল্প কারখানা নির্মাণ করা হয়ে ওঠে নি।

শিল্প কারখানা করতে না পেরে তিনি সে জমিতে পারিবারিক ক্যানেল খনন ও অসংখ্য ফুলের গাছ রোপণ করেন। যা এক সময় বাগান বাড়ি নামে খ্যাতি অর্জন করে। এভাবেই ২০১১ সালের ৩১ শে আগস্ট মাত্র ৫ টি রাইডস নিয়ে শুরু হয় এই ড্রিম হলিডে পার্কটি। বর্তমানে ড্রিম হলিডে পার্কে দেশি ও বিদেশি প্রকৌশল দ্বারা মোট ৬০ একর জায়গার উপর প্রায় ৩০ টি রাইডস স্থাপন করা হয়েছে।

টিকেট কাটা, খোলা ও বন্ধের সময় সূচি

প্রতিদিন সকাল ১০ টা থেকে রাত ৮ টার মধ্যে দর্শনার্থীদের উদ্দেশ্যে ড্রিম হলিডে পার্ক খোলা থাকে। আর প্রতিদিন সন্ধ্যা ৬ টা থেকে ৬ঃ৩০ মি এর মধ্যেই টিকেট কাটার কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যায়।

কটেজ ও পিকনিক স্পট

অবসর সময়ে পরিবারকে নিয়ে ড্রিম হলিডে পার্কে রাত্রি যাপন করতে চাইলে এখানে আছে দিবা ও রাত্রি নামের দুইটি কটেজ। চাঁদনী রাত উপভোগের জন্য অতিথিদের কাছে এই কটেজগুলো আদর্শ। এখানে আপনি পাবেন সব আধুনিকতার ছোঁয়া।

কটেজটিতে আছে এসি রুম, ২৪ ঘণ্টা রুম সার্ভিস ও সিকিউরিটি গার্ড দ্বারা সর্বক্ষণ নিরাপত্তা। ব্যাক্তিগত গাড়ি পার্কের সুব্যবস্থা, ২৪ ঘণ্টা বিদ্যুৎ সরবরাহ, উন্নতমানের খাবার রেস্টুরেন্ট।

দিবা রাত্রি কটেজের দৈনন্দিন ভাড়া সমূহ

আপনার অবসর সময়কে আরও আনন্দপূর্ণ করে তুলতে দিবা ও রাত্রি নামে কটেজ আছে আপনার পাশে সর্বক্ষণ!
২৪ ঘন্টা জন্য সম্পূর্ণ কটেজ দাম ১০,০০০ টাকা।
২৪ ঘন্টা জন্য প্রতিটি ইউনিট মূল্য ৫,০০০ টাকা সাথে ১৫% ভ্যাট তো থাকছেই।

মধুরিমা ও মায়াবী পিকনিক স্পট

স্কুল, কলেজ, ইউনিভার্সিটি, কর্পোরেট হাউজ, পারিবারিক আয়োজন সহ নানা উপলক্ষ্যের জন্য ড্রিম হলিডে পার্কে আছে মধুরিমা ও মায়াবী নামে ২ টি পিকনিক স্পট।

যেখানে আপনি পাবেন সুন্দর ডেকোরেটস, স্বাস্থ্যসম্মত টয়লেট ব্যবস্থা, ২৪ ঘণ্টা সরকারি নিরাপত্তা, সিকিউরিটি গার্ড সহ গাড়ি পার্কের ব্যবস্থা, প্রতিটা রাইডসে চড়া, খাবার ব্যবস্থা, ২৪ ঘণ্টা বিদ্যুৎ সরবরাহ, ২ টি এসি রুম, ১টি বারান্দা যেখানে দাঁড়ালে প্রাকৃতিক দৃশ্য এবং ওয়াটার পার্ক দেখা যায়। খাবার রেস্টুরেন্ট, সর্বক্ষণ ১জন কেয়ারটেকারসহ এবং আধুনিক সব সুযোগ সুবিধা।

মধুরিমা ও মায়াবী পিকনিক স্পটের দৈনন্দিন ভাড়া

কার্যদিবসগুলোতে পিকনিক স্পটের ভাড়া কিছুটা কম হলেও সরকারি ছুটির দিন শুক্রবারে ভাড়া একটু বেশি পোহাতে হয় দর্শনার্থীদের।

মায়াবী পিকনিক স্পটে ছুটির দিন শুক্রবারে ৩০০ জনের জন্য মোট ১,০০,০০০ টাকা ভাড়া দিতে হয়। শুক্রবার ব্যতীত অন্যান্য দিনে ৩০০ জনের জন্য ৯০,০০০ টাকা ভাড়া দিতে হয়। সাথে ১৫% ভ্যাট তো আছেই।

মধুরিমা পিকনিক স্পটে ছুটির দিন শুক্রবারে মোট ৫০০ জনের জন্য ১,৫০,০০০ টাকা ভাড়া দিতে হয়। আর কার্যদিবসগুলোতে ৫০০ জনের জন্য ভাড়া ১,৩০,০০০ টাকা দিতে হয়। সাথে ১৫% ভ্যাট সংযুক্ত।

বড় ও ছোটদের বিভিন্ন রাইডস সমূহ

ড্রিম হলিডে পার্কে সম্পূর্ণ জমির উপর ছোট ও বড়দের জন্য মোট ৩০ টি রাইডস নির্মাণ করা হয়েছে। এখানে আছে ছোট থেকে বড়দের বিনোদনের সব ধরনের রাইডস। আছে কাইট ফ্লাইং, সুইং চেয়ার, ৯ডি মুভি, ফ্যানটম হিল, ওয়াটার রয়েল কার, সুইং মটর বাইক, স্পীড বোট, প্যাডেল বোট, রোলার কোস্টার, এয়ার বাই সাইকেল, বুল রাইড, বুলেট ট্রেন, ওয়াটার পার্ক, ভুত বাড়ি, ক্যাবেল কার, বাম্পার কার, জাম্পিং হর্স, রকিং হর্স, ম্যাজিক বল, খেলার মাঠ, স্পেস শিপ ইত্যাদি সব ধরনের বিনোদনের সর্ব চেষ্টা।

কেনাকাটা

ড্রিম হলিডে পার্কে আপনি শুধু বিনোদনের সব ব্যবস্থাই পাবেন না। সাথে পাবেন নারায়ণগঞ্জের বিখ্যাত জামদানি শাড়ির মেলা ও নিত্য প্রয়োজনীয় সব জিনিসের দোকান। এখানে খুব স্বল্প মূল্যে জামদানি শাড়ি কিনতে পাওয়া যায়। সাথে থাকছে আরও নজর কাড়া সব মেয়েদের থ্রিপিস, অন্যান্য দেশীয় শাড়ি, মালা, কারুকাজ বিশিষ্ট বিছানার চাঁদর, কুশন কভার ইত্যাদি বাহারি পণ্যের দোকান।

খাবার ব্যবস্থা

দূর থেকে দূরান্তর ছুটে আসা দর্শনার্থীদের কথা মাথায় রেখে ড্রিম হলিডে পার্কে আছে নিজস্ব খাবার রেস্টুরেন্ট। যেখানে আপনি পাবেন চাইনিজ, ইন্ডিয়ান, বাংলা খাবার সহ চটপটি, ফুচকা, আইসক্রিম ইত্যাদি নানা ধরনের সব মুখরোচক খাবার। এখানে খাবার কর্নার ছাড়া আছে আইস কর্নার, কফি কর্নার ও জুস কর্নার।

প্যাকেজ সিস্টেম

ড্রিম হলিডে পার্কে সারাদিন কাটানোর জন্য আপনাকে দিচ্ছে প্যাকেজ সিস্টেম ভ্রমণ। এখানে আছে দুই ধরনের প্যাকেজ ব্যবস্থা। ফ্যামিলি প্যাকেজ ও কাপল প্যাকেজ।

ফ্যামিলি প্যাকেজ

৪ জনের ফ্যামিলি প্যাকেজে আপনি পাচ্ছেন ৪৫০০ টাকার মধ্যে সব ধরনের রাইডসে চড়ার সুযোগ ও সাফারি পার্কে প্রবেশ অগ্রাধিকার। একাধারে পাচ্ছেন ওয়াটার পার্ক, ফ্যামিলি বোট যেখানে সকলকে নিয়ে লেকের দৃশ্য উপভোগ করতে পারেন। আছে সুইং চেয়ার, এয়ার বাই সাইকেল, রকিং হর্স, বাম্পার কার, ড্রিম আই, হেলিকপ্টার সহ সব রাইডসে চড়ার সুযোগ সুবিধা।

কাপল প্যাকেজ

২ জনের এই কাপল প্যাকেজে আপনি পাচ্ছেন জনপ্রতি ২৫০০ টাকার মধ্যে সব ধরনের রাইডসে চড়ার সুযোগ ও সাফারি পার্কে প্রবেশ অগ্রাধিকার। একাধারে পাচ্ছেন ওয়াটার পার্ক, ফ্যামিলি বোট যেখানে প্যাডেলেল সাহায্যে সকলকে নিয়ে লেকের দৃশ্য ঘুরে দেখতে পারেন। আছে সুইং চেয়ার, এয়ার বাই সাইকেল, রকিং হর্স, বাম্পার কার, ড্রিম আই, হেলিকপ্টার সহ সব রাইডসে চড়ার সুযোগ সুবিধা।

আরো বিস্তারিত জানতে সরাসরি ওদের সাথে যোগাযোগ করুন

০১৭১১৪৫৩৪২৯ , ০১৭৬২৬৯৬৩০২ এবং ০১৭৬২৬৯৬৩০৩
Email- dreamholidayltd@gmail.com
Website- www.dreamholidayparkbd.com
Facebook page: www.facebook.com/dreamholidaypark

হেড অফিস :
সিটি ভবন, (৭ম ফ্লোর) ২০-২১, বি,
ব- এভিনিউ, ঢাকা
মবাইলঃ +৮৮ ০২৯৫৭০১৪০৪১ অথবা ৯৫৫৮৫৫২

অথবা

নারায়ণগঞ্জ অফিস ঠিকানা :
৫৬, মালিহা রোড, প্রাইম ব্যাংক ভবন , গ্রাউন্ড ফ্লোর, নারায়ণগঞ্জ, ঢাকা
মোবাইলঃ +৮৮ ০২৭৬৩০২২৫ অথবা ০১৭১১৪৫৩৪২৯

যাওয়ার উপায়

ঢাকা থেকে বিভিন্ন উপায়ে আপনি ড্রিম হলিডে পার্কে যেতে পারেন। তবে ড্রিম হলিডে পার্ক যাওয়ার একমাত্র প্রধান সড়কটি হল ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক। ঢাকা-সিলেটগামী যেকোনো বাসে উঠলেই আপনাকে নামিয়ে দিবে ড্রিম হলিডে পার্কের প্রধান ফটকে।

বাসে করে ঢাকা থেকে ড্রিম হলিডে পার্ক

ঢাকার সায়েদাবাদ বাস টার্মিনাল থেকে মনোহরদী, আনা সুপার সার্ভিস, মহাখালী বাস টার্মিনাল থেকে আপনি পিপিএল ট্রান্সপোর্ট, বিআরটিসি এসি বাস, বাদশা, আরাবিয়ান ট্রান্সপোর্ট, চলন বিল বাস অথবা টঙ্গি-পুবাইল যায় এমন বাসে উঠলে আপনাকে নামতে হবে পাঁচদোনায়। ভাড়া নিবে ৯০ থেকে ১০০ টাকা। সেখান থেকে সিএনজি বা অটো রিক্সাতে ভাড়া ১০০ টাকা করে আপনি সরাসরি যেতে পারেন ড্রিম হলিডে পার্কে।

ট্রেনে করে ড্রিম হলিডে পার্ক

ঢাকার কমলাপুর রেলস্টেশন থেকে আন্তঃনগর মহানগর গোধূলি ট্রেনে সরাসরি নরসিংদীর পাঁচদোনায় যেতে পারেন। সেখান থেকে সিএনজি বা অটো রিক্সাতে আপনি চলে যেতে পারেন স্বপ্নময়য় রাজ্য ড্রিম হলিডে পার্কটিতে।

গাজীপুরের জনপ্রিয় রিসোর্ট সম্পর্কে জানতে, ভিজিট করুন: 

আমাদের এই পোস্টটি যদি আপনার ভ্রমনের ক্ষেত্রে কিছুটা হলেও উপকারে আসে এবং ভালো লেগে থাকে তাহলে পোস্টটি লাইক দিতে ভুলবেন না। এবং পোস্টটি শেয়ার করে আপনার আশেপাশের সবাইকে জানার সুযোগ করে দিন।


বি.দ্র. একটি সুন্দর প্রকৃতি ও পরিবেশ আমাদের দেয় একটি প্রাণবন্ত জীবন। আর এই সুন্দর পরিবেশটিকে সংরক্ষণ করার দায়িত্বটাও একান্ত আমাদের। তাই দয়া করে সেখানে কেউ মাটিতে কিছু ফেলবেন না,গাছপালা ছিঁড়বেন না এবং পরিবেশ নোংরা করবেন না। সর্বোপরি আমাদের এই সুন্দর পরিবেশকে আরও সুন্দর রাখার চেষ্টা করবেন।  

ভ্রমণ সম্পর্কিত নতুন নতুন জায়গার আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে একটিভ থাকুন। 

আপনার পছন্দের জায়গাগুলো যেখানে আপনি এখনও ভ্রমন করেন নি তবে সেখানে যেতে চান! এরকম নিজের সব পছন্দের স্থানগুলোর নাম লিখে ও কিভাবে যেতে হবে তার সকল তথ্যসমূহ জানতে হলে আমাদের ফেসবুক গ্রুপে হেল্প পোস্ট করুন। আমরা আপনার পছন্দের স্থানগুলোর সকল তথ্য দিতে সচেষ্ট থাকবো সর্বক্ষণ।

আর হ্যা, অবশ্যই আপনার বিশ্ব ভ্রমন অভিজ্ঞতাটি আমাদের ফেসবুক গ্ৰুপে শেয়ার করতে ভুলবেন না।


Leave a Reply