Rajendra Eco Resort & Village | Gazipur
Rajendra Eco Resort

Rajendra Eco Resort & Village | Gazipur

প্রাকৃতিক সৌন্দর্য দ্বারা সজ্জিত ও গভীর বন-বনাঞ্চল দ্বারা বেষ্টিত গাজীপুরের এই রাজেন্দ্র ইকো রিসোর্ট ( rajendra eco resort)। যা গাজীপুর জেলার রাজেন্দ্রপুর ক্যান্টনমেন্ট থেকে মাত্র ৮ কিলোমিটার দূরে ভবানীপুর গ্রামে প্রায় ৮০ বিঘা জমির উপর ২০০৯ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়।  

রাজেন্দ্রপুরের বিশাল এই শাল বনের সৌন্দর্যকে ধরে রাখতে এখানে করা হয়েছে আরো বনায়ন। যেখানে ঢাকা থেকে যেতে সময় লাগে মাত্র দুই থেকে আড়াই ঘন্টা। সামরিক বাহিনীর একজন অবসর প্রাপ্ত মেজরের তত্ত্বাবধানে যৌথ মালিকানায় গড়ে তোলা হয়েছে এই রিসোর্ট।

সম্পূর্ণ জমিতে মোট ১১টি প্লট ১১ জনের কাছে বিক্রি হয় এবং মালিকরা প্রায় একই ধরণের ১৯টি বিল্ডিং নির্মাণ করেন। প্রতিটি ভবন চার তলা বিশিষ্ট এবং প্রতিটা ছাদে আছে বন পর্যবেক্ষণের জন্য অবজারভেশন টাওয়ার। যেখানে দাঁড়িয়ে এক নজরে আপনি দেখতে পাবেন পুরো শালবন। এক একটি তলায় আছে মোট চারটি রুম।

রাজেন্দ্র ইকো রিসোর্টে আছে প্রায় ২৬ টি কটেজ। এছাড়াও আছে গ্রাম বৈচিত্রের মাটির ঘর, লেকের পাড়ে অবিরাম মাছ ধরা, নৌকায় করে পুরো লেকের সৌন্দর্য উপভোগ, খোলা মাঠে সাইকেল চালানো থেকে শুরু করে আপনার বিনোদনের সব উপকরণ। আরো আছে সুইমিংপুল, ম্যাসেজ পার্লার ও ক্যাফেটেরিয়া।

দর্শনার্থীদের নিকট এ রিসোর্টের প্রধান আকর্ষণ হচ্ছে রিসোর্টের নিজস্ব ক্ষেতের শাক, সবজি ও ফার্ম ঘুরে দেখা। যতদূর চোখ যায় শুধুই সবুজ অরণ্য আর মাঝে মাঝে কিছু আদিবাসিদের বাড়ি দেখা যায়।

কটেজ সমূহ

দর্শনার্থীদের আনন্দের সীমা আরও বাড়িয়ে দিতে এখানে প্রকৃতির সান্নিধ্যে সময় কাটানোর জন্য তৈরি করা হয়েছে ২৬ টি কটেজ। এই ২৬ টি কটেজ ছাড়াও এখানে আছে ওয়াটারফ্রন্ট কটেজ অর্থাৎ অর্গানিক লিভিং ইন নেচারে আরও ২২ টি কটেজ।

চলুন তাহলে রাজেন্দ্র ইকো রিসোর্টের কিছু কিছু রিসোর্টের অজানা সব তথ্য জেনে নেওয়া যাকঃ

মঠ হাউস-রুমঃ বিশাল মঠ আকার চালের এই হাউসটির দৈনন্দিন ভাড়া ৪০০০ টাকা। যেখানে ৩জন ব্যাক্তি অনায়াসে সময় উপভোগ করতে পারবে। ভিতরে আধুনিক সব সুযোগ- সুবিধা সহ মঠ হাউসটির সব কিছুই নির্মিত হয়েছে প্রাকৃতিক উপাদান থেকে।

কটেজ পার্কে স্ট্যান্ডার্ড রুমঃ সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক পরিবেশ ঘেরা ইকো ফ্রেন্ডলি ভাবে গড়ে উঠেছে এই কটেজ পার্ক। আর এই পার্কের গাঁ ঘেঁষেই দাড়িয়ে আছে কটেজগুলো। প্রতিটা রুমে ৩ জন ব্যাক্তি থাকতে পারবে। এই রুমগুলোর প্রতিদিনের ভাড়া ৪০০০ টাকা। কটেজের স্ট্যান্ডার্ড রুমগুলো প্রতিটা আধুনিক সুবিধার সাথে কটেজ থেকে নিরাপত্তা দিয়ে থাকে। পার্কের সাথে হওয়ায় দর্শনার্থীরা পাচ্ছে বাগান, খেলার মাঠ, লেকের পাড় ও বিনোদনের সব উপকরন।

ওয়াটারফ্রন্ট কটেজঃ ওয়াটারফ্রন্ট কটেজের প্রতিটা প্রিমিয়াম রুমগুলোতে ৩জনের থাকার জন্য ভাড়া নিবে প্রায় ৬০০০ টাকা। কটেজের বারান্দায় বসে আপনি উপভোগ করতে পারবেন পুরো গহীন অরন্যের রাজ্য। আর পাশে লেক থাকার সুবাদে পাবেন মাছ ধরার সুবিধা, নৌকা ভ্রমণ। প্রতিটি রুমে আধুনিক নকশা, একটি কিং সাইজের বেড ও রুমের সাথে বারান্দা আছে।

মঠ হাউস-হানিমুন কটেজঃ নব দম্পতিদের কথা বিবেচনা করে এখানে আছে হানিমুন কটেজ যার ভাড়া প্রতিদিন ৮০০০ টাকা। মঠ হাউসটি অরন্যের গাছপালা ও প্রাকৃতিক উপাদান দিয়ে তৈরি করা হয়েছে। ঘরের দেয়াল মাটির তৈরি ও উপরের চালা মঠ দিয়ে তৈরি। কটেজের পাশেই আছে লেক, রুমের সাথে বারান্দা যেখানে দাড়িয়ে আপনি নিরিবিলি সময় কাটাতে পারবেন, একটি কুইন সাইজের বেড।

কটেজ পার্কে ডিলাক্স স্যুটঃ ৩ জনের থাকার জন্য ডিলাক্স স্যুটটির প্রতিদিনের ভাড়া ৮০০০ টাকা। বিভিন্ন গাছপালা দিয়ে সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক পরিবেশের সাথে গড়ে উঠেছে ডিলাক্স স্যুট এর পার্কটি। বাগান, খেলার মাঠ, লেক সব মিলিয়ে আপনার বিনোদনের এক অভূতপূর্ব স্থান এ পার্ক। পার্কের ডিলাক্স স্যুট এ আছে একটি লিভিং রুম ও একটি ডাইনিং রুম, ৪ জনের ডাইনিং টেবিল সোফা ও কক্ষগুলো আধুনিক আসবাব দিয়ে সজ্জিত।

প্যাকেজ সিস্টেম

রাজেন্দ্র ইকো রিসোর্টে দর্শনার্থীদের সুবিধার জন্য আছে ডে লং প্যাকেজ ও নাইট স্টে প্যাকেজ নামে এই দুই ধরনের প্যাকেজ ব্যবস্থা।

ডে লং প্যাকেজ: ডে লং প্যাকেজটি কাপল প্যাকেজ ও ফ্যামিলি প্যাকেজ এই দুইটি অংশে ভাগ করা।

  1. কাপল প্যাকেজ

    দুই জন ব্যাক্তির জন্য সকালের নাস্তা, দুপুরের খাবার, সন্ধ্যা ভোজন এ প্যাকেজের আয়তাভুক্ত। ডে লং প্যাকেজটিতে মোট দুই জন ব্যাক্তির জন্য সর্বমোট ৬২৫০ টাকা ভাড়া দিতে হয়। আর যদি চান ওয়াটারফ্রন্ট কটেজগুলোতে থাকতে তাহলে ভাড়া লাগবে সারা দিনের জন্য মোট ৮৭৫০ টাকা।

  2. ফ্যামিলি প্যাকেজ

    সাধারনত পরিবারের মোট ৬ জন সদস্যদের জন্য এখানে আছে ফ্যামিলি প্যাকেজ। যেখানে আপনি পাবেন সকালের নাস্তা, দুপুরের খাবার, সন্ধ্যা ভোজন। সারাদিনের এই প্যাকেজটি পরিবারের সকলকে নিয়ে আনন্দে মেতে উঠতে চাইলে ভাড়া পড়বে ১৫০০০ টাকা। যেখানে জনপ্রতি সদস্যর খরচ পড়বে ২৫০০ টাকা করে। অন্যথায় যদি একটু নিরিবিলি লেকের পাশ ঘেঁষে ওয়াটারফ্রন্ট কটেজগুলোতে সময় কাটাতে চান তাহলে ৬ জনের ভাড়া লাগবে ১৮০০০ টাকা। যেখানে জনপ্রতি ভাড়া ৩০০০ টাকা।

নাইট স্টে প্যাকেজ: রাজেন্দ্র ইকো রিসোর্টটিতে দর্শনার্থীদের রাত্রি যাপনের জন্য আছে নাইট স্টে প্যাকেজ। যেখানে কাপলদের জন্য এবং পরিবার- পরিজনদের জন্য আছে নানা সুযোগ-সুবিধা।

  1. কাপল প্যাকেজ

    সাধারণত দূর-দূরান্ত থেকে আসা প্রকৃতি প্রেমী দম্পতি যারা প্রকৃতির রূপকে আরও কাছ থেকে উপভোগ করার জন্য রাত্রি যাপন করতে আসে তাদের জন্য এই প্যাকেজ। প্যাকেজটিতে মোট ২ জনের জন্য আছে দুপুরের খাবার, রাতের খাবার ও রাতে বারবিকিউ পার্টি, পরদিন সকালের নাস্তার ব্যবস্থা। যার ভাড়া প্রতি রাতে ১০০০০ টাকা। আর ওয়াটারফ্রন্ট কটেজগুলোতে থাকতে চাইলে ভাড়া ১২৫০০ টাকা।

  2. ফ্যামিলি প্যাকেজ

    পরিবারের মোট ৮ জন সদস্যদের নিয়ে একাকী রাত্রি যাপন ও প্রকৃতির স্পর্শ পাওয়ার জন্য বেশির ভাগ দর্শনার্থী এই প্যাকেজটিকেই বেঁছে নেয়। দুপুরের খাবার, রাতের খাবার ও বারবিকিউর আয়োজন, পরদিন সকালের নাস্তা রিসোর্ট ম্যানেজমেন্ট থেকেই দিয়ে থাকে। ফ্যামিলি প্যাকেজের প্রতি রাতের ভাড়া ৪০০০০ টাকা এবং ওয়াটারফ্রন্ট কটেজগুলোতে থাকতে হলে ভাড়া নিবে মোট ৪৮০০০ টাকা।

অনলাইনে কটেজ বুক করার পর যদি তা কোন কারনে ক্যান্সেল করতে চাইলে ৭২ ঘণ্টার আগে ক্যান্সেল করলে কোন চার্জ নেই। কিন্তু ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে ক্যান্সেল করলে ৫০% পেমেন্ট দিতে হবে।

রেস্টুরেন্ট

রাজেন্দ্র ইকো রিসোর্টে আপনি পাবেন নিজস্ব জমিতে অর্গানিক সার ব্যবহারে উৎপাদিত প্রাকৃতিক খাদ্যের স্বাদ। দর্শনার্থীদের ক্লান্তির কথা বিবেচনা করে এখানে আছে একটি রেস্টুরেন্ট যেখানে সকল ধরণের বাংলাদেশী খবার পাওয়া যায়। স্পেশাল প্যাকেজ, ঐতিহ্যবাহী খাবার সহ আছে ভাত, মাছ, মাংস, সবজি, ডাল, বিরিয়ানিসহ বিভিন্ন মিষ্টান্ন খবার।

রাজেন্দ্র ইকো রিসোর্টের খাবার সময় সূচিঃ

বেলা সময়
সকালের নাস্তা 7.00AM- 9.30PM
দুপুরের খাবার 12.00 – 3.00PM
রাতের খাবার 7.30 – 10.30PM

যোগাযোগ

দিন দিন রাজেন্দ্র ইকো রিসোর্টের জনপ্রিয়তা বাড়ার কারনে বিশেষ করে ছুটির দিনগুলোতে রিসোর্টের কটেজ পাওয়া দুষ্কর। তাই বেশিরভাগ ব্যাক্তি এখন যাওয়ার আগে অনলাইনে বুকিং করে রাখে। রিসোর্টে সরাসরি যোগাযোগ করতে চাইলে ফোন করুনঃ

Phone: +৮৮০২৪৮৯৫৫০২৫ অথবা +৮৮০১৮৮৬১৫১৮২১
Mobile: ০১৭৯৩৩১৩৬৬১ অথবা ০১৭৯৩৩১৩৬৬২
Website: www.rajendraecoresortvillage.com
Email: info@rajendraecoresortltd.com
Facebook Page: facebook.com/RajendraEcoResort

অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা

*২৪ ঘন্টা ওয়াইফাই সংযোগ সুবিধা

*২৪ ঘন্টা রুম সার্ভিস প্রদান

সীমাবদ্ধতা

১। চা-বিস্কুটের দোকান ছাড়া এখানে অতিরিক্ত কোন খাবার দোকান চোখে পড়বে না।

২। রিসোর্টটি জঙ্গলের অনেক গহীনে হওয়ার ফলে এখানে তেমন কোন নিরাপত্তা নেই বললেই চলে।

যাওয়ার উপায়

আপনি বিভিন্ন উপায়ে প্রকৃতির খোঁজে রাজেন্দ্র ইকো রিসোর্টে যেতে পারেন। তবে ঢাকা থেকে গেলে বাস যেমন এভেলেবেল তেমনি সময় ও কম লাগে।

ঢাকা অথবা মহাখালী থেকে ছেড়ে আসা বাসগুলোর মধ্যে অনন্যা সুপার, অনন্যা ক্লাসিক, এগারোসিন্ধু বা রাজেন্দ্রপুর ক্যান্টনমেন্টের দিকে আসা যেকোনো বাসে উঠে পড়লে নামতে হবে ক্যান্টনমেন্ট কলেজের সামনে। সেখান থেকে সিএনজি বা অটোরিক্সা দিয়ে হাতের বা দিকের রাস্তা ধরে ৫ কিলোমিটার প্রবেশ করলেই চোখে পড়বে গ্রিনটেক রিসোর্ট নামে জনপ্রিয় আরেকটি রিসোর্ট। এই রিসোর্টের পাশের রাস্তা ধরে শালবনের ভিতর আরও ২ কিলোমিটার এগিয়ে গেলেই আপনি পৌঁছে যাবেন রাজেন্দ্র ইকো রিসোর্ট এন্ড ভিলেজে।

গাজীপুরের আরো জনপ্রিয় রিসোর্ট সম্পর্কে জানতে, ভিজিট করুন: 

আমাদের এই পোস্টটি যদি আপনার ভ্রমনের ক্ষেত্রে কিছুটা হলেও উপকারে আসে এবং ভালো লেগে থাকে তাহলে পোস্টটি লাইক দিতে ভুলবেন না। এবং পোস্টটি শেয়ার করে আপনার আশেপাশের সবাইকে জানার সুযোগ করে দিন।


বি.দ্র. একটি সুন্দর প্রকৃতি ও পরিবেশ আমাদের দেয় একটি প্রাণবন্ত জীবন। আর এই সুন্দর পরিবেশটিকে সংরক্ষণ করার দায়িত্বটাও একান্ত আমাদের। তাই দয়া করে সেখানে কেউ মাটিতে কিছু ফেলবেন না,গাছপালা ছিঁড়বেন না এবং পরিবেশ নোংরা করবেন না। সর্বোপরি আমাদের এই সুন্দর পরিবেশকে আরও সুন্দর রাখার চেষ্টা করবেন।  

ভ্রমণ সম্পর্কিত নতুন নতুন জায়গার আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে একটিভ থাকুন। 

আপনার পছন্দের জায়গাগুলো যেখানে আপনি এখনও ভ্রমন করেন নি তবে সেখানে যেতে চান! এরকম নিজের সব পছন্দের স্থানগুলোর নাম লিখে ও কিভাবে যেতে হবে তার সকল তথ্যসমূহ জানতে হলে আমাদের ফেসবুক গ্রুপে হেল্প পোস্ট করুন। আমরা আপনার পছন্দের স্থানগুলোর সকল তথ্য দিতে সচেষ্ট থাকবো সর্বক্ষণ।

আর হ্যা, অবশ্যই আপনার বিশ্ব ভ্রমন অভিজ্ঞতাটি আমাদের ফেসবুক গ্ৰুপে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

Leave a Reply